কেন ইসলামের দিকে ঝুঁকে পড়েছেন বিল গেটস কন্যা

সম্প্রতি মিশরীয় বংশোদ্ভূত মুসলমান নায়েল নাসেরকে বিয়ে করে আলোচনায় আসেন শীর্ষ ধনকুবের বিল গেটস কন্যা জেনিফার গেটস। গত ১৬ই অক্টোবর তারিখে তাদের দীর্ঘ দিনের প্রেমের সফল পরিনতি হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ সালেমে পিতা বিল গেটসের কাছ থেকে একটি ঘোড়ার খামার উপহার পেয়েছিলেন কন্যা জেনিফার। ১৪২ একরের সেই খামারেই রাজকীয় এ বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করা হয়। নায়েল নাসেরও একজন ঘোড়দৌড়বিদ হওয়ায়, সেই সূত্রে পরিচয় জেনিফারের সাথে।

দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক অবশেষে প্রকাশ্যে আসে ২০২০ সালের জানুয়ারীতে। কোন রাখ ঢাক না করেই সেদিন বিশ্ববাসীকে নিজের মনের কথা জানিয়ে দিলেন জেনিফার। জানালেন নায়েলের প্রতি তার ভালবাসা, তার আবেগ।

পরবর্তী বিভিন্ন টুইট বার্তায় জেনিফার নায়েল সম্পর্কে লিখতে গিয়ে তার ধর্ম বিশ্বাসকে সম্মান করেছেন। মধ্যপ্রাচ্যের কুয়েতে শৈশব কাটানোয় ইসলামিক রীতিনীতি এবং শিক্ষা ভাল ভাবেই রপ্ত করেছেন নায়েল। তারই প্রতিফলন হিসেবে নায়েলকে তিনি আবিস্কার করেছেন সাধারনের মাঝে অসাধারন হিসেবে। ব্যক্তিগত জীবনে অত্যন্ত সৎ, উচ্ছল এবং আবেগপ্রবণ নায়েল নাসেরের আরেকটি বিশেষ গুন যা জেনিফারকে মুগ্ধ করেছে, তা হল নায়েলের সকল প্রাণীর প্রতি ভালবাসা, যা সে ধর্মীয় বিশ্বাস থেকে শিখেছে।

জেনিফার উল্লেখ করেছেন, নায়েল তার নিজের গুন বর্ননায় কখনো এগিয়ে আসে নি। নিজেকে সব সময় আড়ালে রাখতেই পছন্দ করেন নায়েল। একজন অলিম্পিয়ান হয়েও সে নিজেকে সাধারন মানুষ হিসেবেই মনে করে। জেনিফার আরো বলেন, “যখন আমি তাকে এর কারন জিজ্ঞাসা করি, সে জবাবে বলে এটি নবিজীর শিক্ষা”। ইসলাম ও নবীজির প্রতি জানার আগ্রহ নায়েলের সাথে পরিচয়ের পর থেকে আরো বাড়তে থাকে। দুজনের একান্ত সময়ে আরবের ইতিহাস এবং দর্শন নিয়ে আলোচনা হয়। দিনে দিনে নায়েল এবং জেনিফারের মাঝে সম্পর্ক গড়ে উঠে, যার নিয়ামক শক্তি ছিল ইসলাম।

তাই অনেকের অমত সত্বেও, শুধুমাত্র জেনিফারের জেদের কারনেই, সম্পূর্ন বিয়েতেই অনুসরন করা হয় মুসলিম রীতি। পবিত্র দিন হিসেবে শুক্রবারকে বেছে নেওয়া হয় আনুষ্ঠানিকতার জন্য। আরবীয় ইসলামিক রীতি মেনে বিয়ের পোষাক পড়েন জেনিফার। অত্যন্ত অনাড়ম্বর পরিবেশে এই বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়। যদিও এই বিয়ের মোট ব্যয় প্রায় দুই মিলিয়ন ডলার, তার বেশির ভাগই সেই ঘোড়ার খামারকে বিয়ে বাড়িতে রূপান্তর খরচ। বিয়ে বাবদ খরচ হয়েছে কেবল ২২হাজার ডলার।

নিজের নাম পরিবর্তন করে জেনিফার নাসের রাখার ইচ্ছা পোষন করেছেন গেটস কন্যা। যদিও ব্যাপারটি পুনরায় ভেবে দেখতে বলেছেন সদ্য বিচ্ছেদ হওয়া গেটস পত্নী মেলিন্ডা গেটস। বিচ্ছেদের পর এই প্রথম একসাথে সময় কাটিয়েছেন গেটস দম্পতি। তাদের কন্যা জেনিফার একজন হৃদয়বান কন্যা পাওয়ায় দুজনেই অত্যন্ত খুশী।

Spread the love